ব্ল্যাক ফ্রাইডে : যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড বিক্রি


ব্ল্যাক ফ্রাইডে : যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড বিক্রি

ব্ল্যাক ফ্রাইডে : যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড বিক্রি ওয়াল স্ট্রিট বিক্ষোভকারীদের আন্দোলন সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রে গত শুক্রবার ব্ল্যাক ফ্রাইডের বিক্রি রেকর্ড করেছে। খুচরা দ্রব্যসামগ্রী বিক্রির প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্ন পণ্যে মূল্য হ্রাস ও বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ক্রেতা আকর্ষণে সফল হওয়ায় গত বছরের তুলনায় বিক্রি ৬ দশমিক ৬ শতাংশ বেড়েছে। এ হিসাবে এ বছর বিক্রি ১ হাজার ১৪০ কোটিতে পৌঁছেছে এবং এটিই দেশটিতে ব্ল্যাক ফ্রাউডে উপলক্ষে সবেচেয়ে বেশি বিক্রি বলে শিকাগোভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান শপার ট্রাক জানায়। খবর এএফপি ও ইয়াহু নিউজের।

কেনাকাটা উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি বছর নভেম্বরের শেষ শুক্রবার ব্ল্যাক ফ্রাইডে হিসেবে পালন করা হয়। বিক্রি বাড়ার ফলে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের গতি আরও বাড়বে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। কারণ তিন দিনে যে পরিমাণ বিক্রি হয়েছে তা গত বছর অর্জিত প্রবৃদ্ধির অর্ধেক বলে জানা যায়। একই সঙ্গে খুচরা দ্রব্যসামগ্রী বিক্রেতাদের জন্য এটি বছরের সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়ার দিনও ছিল। এর আগে গত বছর ব্ল্যাক ফ্রাইডের বিক্রি ছিল ৫ দশমিক ২ শতাংশ। ফলে দেশটির চলতি বছর এ দিবসটির বিক্রি ২ দশমিক ৮ শতাংশ বাড়বে বলে দ্য ন্যাশনাল রিটেইল ফেডারেশন প্রত্যাশা করেছিল।

ব্যবস্থাপনা পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এ টি কিয়ার্নির অংশীদার লরা গুরস্কি বলেন, ‘প্রত্যেকে একই ক্রেতা আকর্ষণে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছে।’ এ ক্রেতাদের একজন হলেন এলিসন সার্টরেন্ড। বোস্টনভিত্তিক এ হিসাবরক্ষক টাইম স্কয়ারে কাপড়ের দোকান অ্যারোপোস্টালে গিয়েছিলেন কেনাকাটার জন্য। তিনি বলেন, একমাত্র কম দাম ও ভাল সুযোগ পেলেই আমি কেনাকাটার জন্য দোকানে যাই।

এদিকে অ্যারোপোস্টাল ইনকরপোরেশন তাদের ওয়েবসাইটে জানায়, শনিবারের ব্লুআউটের জন্য আমাদের সবকিছুর দাম ৫০ থেকে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত কমানো হয়েছে। এ ছাড়া নিউইয়র্কের টাইম স্কয়ারে গ্যাপ ইনকরপোরেশনের শনিবারের বিশেষ কেনাকাটা উপলক্ষে সব ধরনের পোশাকের ওপর ৬০ শতাংশ ছাড় দেয়া হয় বলেও জানা যায়। পরামর্শদাতা প্রতিষ্ঠান অ্যালিক্সপার্টনার্স এলএলপির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডেভিড বাসোক বলেন, এ খেলার নাম হচ্ছে— উন্নয়ন, উন্নয়ন, উন্নয়ন। তারা সামনেও একে ধরে রাখতে চায়। প্রসঙ্গত,
যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও এ দিবস উপলক্ষে ওয়াশিংটনের স্থানীয় দোকানগুলোয় গিয়েছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে ব্ল্যাক ফ্রাইডের বিক্রি অপেক্ষাকৃত ভালো হলেও গত শুক্রবার অকুপাই ওয়াল স্ট্রিটের বিক্ষোভকারীদের কারণে বেশ কয়েকটি দোকানে বিক্রি বন্ধ ছিল। এর মধ্যে লস এঞ্জেলেসে ওয়ালমার্টের একটি শাখায় সবচেয়ে বেশি বিশৃঙ্খল অবস্থার সৃষ্টি হয়। এখানে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে কমপক্ষে ২০ জন আহত হন। তার পরও স্মার্টফোনের মতো পণ্যগুলোর দাম তুলনামূলক কমিয়ে দেয়ায় দোকানটিগুলোয় ক্রেতাদের ভিড় দেখা গেছে। সিয়ার্স হোল্ডিংয়ের রিটেইল সার্ভিসের ভাইস প্রেসিডেন্ট জ্যামিই বুকস রয়টার্সকে বলেন, এ মৌসুমের পুরো সময়ই আমরা এ ধরনের কর্মসূচি চালু রাখব। তবে একটি দিবস উপলক্ষেই আমরা আমাদের সব পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করব না।

এদিকে ব্ল্যাক ফ্রাইডের বিক্রি বাড়ানোর জন্য বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্নভাবে প্রচারণা চালানো শুরু করেছে। ডিপার্টমেন্টাল স্টোর ম্যাকিস ইনকরপোরেশন তাদের পণ্যের প্রচারণার জন্য তরুণ সঙ্গীতশিল্পী জাস্টিন বিবারকে বেছে নিয়েছে। জেসি প্যানি কোম্পানি ইনকরপোরেশনের নির্বাহী মাইক থিলম্যান বলেন, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে, বিজ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করা।

সফটওয়্যার ও খুচরা দ্রব্যসামগ্রী বিক্রির প্রতিষ্ঠান আইবিএম স্মার্টার কমার্স জানায়, থ্যাংকসগিভিং উপলক্ষে অনলাইনে বিক্রির পরিমাণ ৩৯ দশমিক ৩ ও ব্ল্যাক ফ্রাইডে উপলক্ষে ২৪ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি বাজার পেয়েছে মোবাইল ফোনসেট ও ট্যাবলেট কম্পিউটার। প্রসঙ্গত, বড়দিন উপলক্ষে কেনাকাটার প্রস্তুতি মূলত শুরু হয় এ ব্ল্যাক ফ্রাইডের মধ্য দিয়েই। ফলে এ দিনগুলোর জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকে খুচরা দ্রব্যসামগ্রী বিক্রির ছোট প্রতিষ্ঠান থেকে বড় চেইন শপ ও সুপার মার্কেটগুলো। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রে ভোক্তা ব্যয় দেশটির অর্থনীতির ৭০ শতাংশ হওয়ায় বর্তমান এ মন্দাবস্থায় স্বাভাবিকভাবেই এখন বিনিয়োগকারীদের নজর ক্রেতাদের গতিবিধির ওপর।
বণিক বার্তা ডেস্ক

%d bloggers like this: