পার্থকে নিয়ে বিপাকে শেখ হেলাল পরিবার


পার্থকে নিয়ে বিপাকে শেখ হেলাল পরিবার

June 19, 2013
Andalib Parthoঢাকা:মেয়ের জামাইকে নিয়ে বিপাকেই পড়েছেন প্রধানমন্ত্রীর চাচাতো ভাই শেখ হেলাল উদ্দিন। কোনো কিছুতেই বাগে আনতে পারছেন না তাকে। বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য হয়ে ও হরহামেশাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সরকারের মুখোরোচক সমালোচনা করে যাচ্ছেন তিনি। এই তিনির নাম আন্দালিব রহমান পার্থ। তিনি আঠারো দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি-বিজেপির সভাপতি।

ভোলা সদরের সাংসদ আন্দালিব রহমান পার্থকে নিয়ে আওয়ামী লীগে ব্যাপক সমালোচনা রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীকে­ নিয়ে তাঁর বক্তব্য ভাল ভাবে নিচ্ছেন না সরকারের নীতি নির্ধারকরা। শেখ হেলাল কেন পার্থ কে বোঝাতে পারেন না তা নিয়ে ও নানা কথা আছে আওয়ামী লীগ নেতাদের মধ্যে। শুধু তিনিই নন, আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম পার্থর মামা। ভাগ্নের কারণে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয় তাকেও। খালাতো ভাই জাতীয় সংসদের হুইপ নূর-ই-আলম লিটন চৌধুরী ও এর বাইরে নয়। তিনি ও সমালোচকের দায় এড়াতে পারেন না সহজে। খালু আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী। মামাতো ভাই ফজলে নূর তাপসও এ নিয়ে আন্দালিব রহমান পার্থের সঙ্গে কথা বলেছেন।

পার্থর ঘনিষ্ঠ সূত্র ঢাকাটাইমসকে জানায়, কদিন আগে বিজেপি নেতার বাসায় আওয়ামী লীগের তার ঘনিষ্ঠরা এ নিয়ে বৈঠক ও করেন। তারা পার্থকে হেফাজতে ইসলামের আন্দোলনের পক্ষে বক্তৃতা-বিবৃতি থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করেন। এরপর থেকে অনেকটা গা ঢাকা দিয়ে আছেন বিজেপি চেয়ারম্যান।

এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য আন্দালিব রহমান পার্থর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মুঠোফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনকে হারিয়ে ভোলা সদরের এমপি হন পার্থ। বাবা নাজিউর রহমান মঞ্জুর হাত ধরেই রাজনীতিতে আসা পার্থের। সাবেক মন্ত্রী নাজিউরের জনপ্রিয়তা কাজে লাগিয়ে এলাকায় নিজের অবস্থান তৈরি করে ফেলেছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাচাতো ভাই শেখ হেলালের মেয়ে শেখ সায়রা রহমানকে বিয়ে করেছেন তিনি। এই দম্পতির দুই কন্যা মাহাম সানজিদা রহমান এবং দিনাবিনতে আন্দালিব।

ঢাকায় সেন্টযোসেফ ও ল্যাবরেটরি স্কুলে পড়া লেখা করেছেন পার্থ। লন্ডনে রলিং কনসইন থেকে ১৯৯৭ সালে সম্পন্ন করেন বার-অ্যাট-ল। ইংল্যান্ডের উল্ভার হ্যাম্পটন ইউনিভার্সিটির ছাত্র ছিলেন পার্থ। টিউশন নিয়েছেন হল্বর্ন কলেজ থেকে। তিনি লিংকন সইনের মেম্বার। দেশে ফিরে চার বছর কাজ করেন প্রখ্যাত আইনজীবী রফিক-উল হকের সঙ্গে।

পার্থ মনে করেন, ছাত্রলীগ যুবলীগ দিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা হবে না। সোনার বাংলা গড়তে হলে যে প্রবাসী শ্রমিকরা মাথার ঘাম পায়ে ফেলে এদেশে টাকা পাঠায় তাদের মূল্যায়ণ করতে হবে। তাদের ভালোবাসতে হবে। যে পোশাক শ্রমিকরা ‘মেড ইন বাংলাদেশ’কে বিশ্বের কাছে পরিচিত করেছে তাদের সম্মান করতে হবে।
সোমবার জাতীয় সংসদে বাজেটের উপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (বিজেপি) আন্দালিব রহমান পার্থ এ কথা বলেন।

পদ্মাসেতু, হলমার্ক, হেফাজতে ইসলাম, জঙ্গী, শাহবাগ, ভিওআইপিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সরকারের বিতর্কিত ভূমিকার সমালোচনা করে বক্তৃতা করেন তিনি। বিতর্কিত ভূমিকার জন্য দপ্তরবিহীন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের পদত্যাগও দাবি করেন পার্থ।

ওয়ান ইলেভেনের সময়ে সরকারের নির্যাতন, অনিয়মের প্রসঙ্গ এনে তিনি বলেন, এজন্য দায়ী কোন সেনা কর্মকর্তার বিচার হয়নি।
পার্থের বক্তৃতার সময় সরকার দলীয় সদস্যরা হৈ চৈ করে প্রতিবাদ জানান। বক্তৃতা শেষে সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত ব্যক্তিগত আক্রমণের জবাব দিতে চাইলে স্পিকার তাকে থামিয়ে দিয়ে বলেন, আপনাকে পরে সময় দেওয়া হবে।

http://newstimes24.net/?p=10849