বাংলাদেশে শ্রমিক অসন্তোষে উদ্বিগ্ন ওবামা প্রশাসন


নিউইয়র্ক টাইমসের প্রধান শিরোনাম : গার্মেন্ট আন্দোলন স্তব্ধ করে দিতে পুরো নিরাপত্তাযন্ত্রকে ব্যবহার করছে সরকার : বাংলাদেশে শ্রমিক অসন্তোষে উদ্বিগ্ন ওবামা প্রশাসন

August 25, 2012

ইলিয়াস হোসেন
বাংলাদেশের শ্রমিকদের তৈরি একটি সোয়েটার ইউরোপে বিক্রি হয় ৫০ ডলারে। অথচ সারা মাস কাজ করে এদেশের একজন শ্রমিক বেতন পান মাত্র ৩৭ ডলার। বিশ্বের সবচেয়ে কম মজুরি পান বাংলাদেশের গার্মেন্ট শ্রমিকরা। জীবনযাপনের ব্যয় অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়ায় এই সামান্য অর্থ দিয়ে তাদের জীবন চলে না। বাধ্য হয়ে এসব শ্রমিক যখন বেতন বৃদ্ধির জন্য আন্দোলন শুরু করেন তখন শ্রমিকদের প্রতিবাদী কণ্ঠকে স্তব্ধ করে দেয়ার জন্য সরকার তার সব নিরাপত্তাযন্ত্রকে ব্যবহার করে। শ্রমিকদের ওপর চালানো হয় নির্মম নিপীড়ন। হত্যা করা হয় আমিনুল ইসলামের মতো গার্মেন্ট শ্রমিক নেতাকে। 
বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী দৈনিক নিউইয়র্ক টাইমসের গতকালের প্রতিবেদনে গার্মেন্ট শ্রমিকদের এ বেদনাদায়ক চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।
এক্সপোর্ট পাওয়ারহাউজ ফিলস প্যাঙ্গস অব লেবার স্ট্রাইফ শিরোনামে পত্রিকাটির প্রিন্ট সংস্করণে প্রায় আড়াই হাজার শব্দের দীর্ঘ এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।
প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশের গার্মেন্টে শ্রমিক অসন্তোষে ওবামা প্রশাসনও উদ্বিগ্ন। উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের আমদানিকারকরাও। তারা চান শ্রমিকদের মজুরি বাড়ানো হোক। কিন্তু এক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে সরকার ও মালিকপক্ষ। সরকারের ওপর গার্মেন্ট মালিকদের প্রভাব ব্যাপক। প্রতিবেদনে দেশের ইপিজেডগুলোকে
দেশের ভেতরে আরেক দেশ হিসেবে উল্লেখ করে বলা হয়েছে এখানে দেশের প্রচলিত আইন অচল। ইপিজেডগুলো পরিচালনা করে থাকেন সেনা কর্মকর্তারা। গার্মেন্ট মালিকরা এখন গণমাধ্যমের মালিকানা অর্জনের দিকে ঝুঁকছেন বলেও জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে। বিশিষ্ট গার্মেন্ট মালিক ও এফবিসিসিআই সভাপতি একে আজাদ সংবাদপত্র ও টিভি চ্যানেলের মালিক হয়েছেন। দুই কিস্তির প্রতিবেদনের প্রথম কিস্তি গতকাল প্রকাশিত হয়। প্রথম কিস্তিতে বেশ কয়েকজন গার্মেন্ট শ্রমিকদের ওপর নিরাপত্তা বাহিনীর বর্বর নির্যাতনের কাহিনী তুলে ধরা হয়েছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, এক সময় বাংলাদেশ ছিল দরিদ্র ও বিশ্ব অর্থনীতিতে অপ্রাসঙ্গিক। তবে বর্তমানে চীনের পরই পোশাক রফতানি বাংলাদেশের অবস্থান। টমি হিলফিগার, গ্যাপ, কেলভিন ক্লেইন এবং এইচঅ্যান্ডএম
র মতো বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ডগুলো এখন পোশাক আমদানি করছে বাংলাদেশ থেকে। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় রিটেইলার টার্গেট ও ওয়ালমার্টের মতো কোম্পানির অফিস রয়েছে ঢাকায়। বাংলাদেশের অর্থনীতির জন্য গার্মেন্ট জরুরি। দেশের মোট রফতানির ৮০ ভাগেরও বেশি আসে পোশাক রফতানি করে এবং এ খাতে ৩০ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হয়েছে।
আমেরিকার স্টোরগুলোতে এখন
মেইড ইন বাংলাদেশ খ্যাত পোশাকের ছড়াছড়ি। বাংলাদেশের পোশাক খাতের এ সাফল্যের মূলে রয়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে সস্তা শ্রম। গার্মেন্ট শ্রমিক ন্যূনতম মাসিক বেতন মাত্র ৩৭ ডলার। গত দুবছরে মূল্যস্ফীতি ডাবল ডিজিট ( ১০ শতাংশ বা তার বেশি) অতিক্রম করায় এ সামান্য আয়ে জীবন চালানো শ্রমিকদের জন্য কঠিন হয়ে পড়েছে এবং হরহামেশাই প্রতিবাদ ও পুলিশের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়ে পড়েছে শ্রমিকরা।
শ্রমিকদের দমনে সরকার তার পুরো নিরাপত্তাযন্ত্রকে নিয়োজিত করেছে। সরকারের উচ্চপর্যায়ের একটি কমিটি গার্মেন্ট খাত তদারকি করে থাকে যে কমিটিতে রয়েছে সামরিক বাহিনী, পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। অনেক শিল্প এলাকার জন্য মোতায়েন করা হয়েছে বিশেষ টহল পুলিশ বাহিনী। গোয়েন্দা সংস্থাগুলো শ্রমিক নেতাদের ওপর নজরদারি করে থাকে। কড়া গোয়েন্দা নজরদারিতে থাকা শ্রমিক নেতা আমিনুল ইসলামকে নির্যাতনের পর গত এপ্রিলে হত্যা করা হয়েছে। ওই হত্যার কুলকিনারা হয়নি এখনও
নিউইয়র্ক টাইমস জানায়, বাংলাদেশের শ্রমিক অসন্তোষ ওবামা প্রশাসনের ক্রমবর্ধমান উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত মে মাসে বাংলাদেশ সফরকালে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন শ্রমিক আন্দোলন ইস্যু ও আমিনুল হত্যার প্রসঙ্গটি উত্থাপন করেন। বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান মজীনা বলেছেন, শ্রমিকদের অধিকার নিশ্চিত না করা হলে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের পোশাক রফতানি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।
বিশ্বের সেরা ব্র্যান্ডগুলো সব সময় সস্তা শ্রমের সন্ধানের দেশ থেকে দেশান্তরে ছুটে বেড়ায়। চীনের শ্রমিকের মজুরি বাড়ার পর বাংলাদেশ তাদের কাছে চমকপ্রদ স্থানে পরিণত হয়েছে। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ম্যাককিনসি বাংলাদেশকে
পরবর্তী চীন অভিহিত করে পূর্বাভাস দিয়েছে যে ২০২০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের পোশাক রফতানি বর্তমান ১৮ বিলিয়ন ডলার থেকে বেড়ে তিনগুণ হতে পারে।
জিম ইয়ার্ডলির ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, হেনরি কিসিঞ্জার বাংলাদেশ তলাবিহীন ঝুড়ি বলে মন্তব্য করেছিলেন। কিন্তু তারপর থেকেই বাংলাদেশের নারী শিক্ষা, শিশু ও মাতৃ মৃত্যুহার হ্রাস, মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি ও গড় আয়ু বৃদ্ধিতে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে।
তবে বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী গার্মেন্ট মালিকদের পক্ষ নিয়ে শ্রমিকদের ওপর নিপীড়ন চালায় বলে যে অভিযোগ আছে তা অস্বীকার করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক লিখিত প্রতিক্রিয়ায় বলা হয়, সরকার শ্রমিকদের ওপর মালিকদের স্বার্থকে প্রাধান্য দিচ্ছে না। সরকার শুধু রেফারি বা আম্পায়ারের ভূমিকা পালন করছে। তবে শেখ হাসিনার সরকার শ্রমিকদের অধিকার বৃদ্ধির ইস্যুটি প্রতিহত করে আসছে। বাংলাদেশের ৫ হাজার গার্মেন্ট ফ্যাক্টরির মালিকরা ব্যাপক প্রভাবশালী। গার্মেন্ট কারখানার মালিকরা প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর প্রধান চাঁদাদাতা (ডোনার)। এখন তারা গণমাধ্যমে বিনিয়োগ করতে শুরু করেছে। তারা সংবাদপত্র ও টিভি চ্যানেল কিনে ফেলছে। সংসদ সদস্যদের প্রায় দুই-তৃতীয়াংশই দেশের প্রধান তিনটি বণিক সংগঠনের সদস্য। ৩০ জন এমপিই গার্মেন্ট কারখানার মালিক অথবা তাদের পরিবারের সদস্য।
দেশের ভেতর আরেক দেশ : তিন দশক আগে বাংলাদেশে রফতানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা (ইপিজেড) প্রতিষ্ঠা করা হয়। বর্তমানে দেশের অনেক গার্মেন্ট ইপিজেডের বাইরে অবস্থিত হলেও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে এই বিশেষ এলাকাই প্রিয়। ঈশ্বরদীর মতো বিশেষ রফতানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা যেন দেশের ভেতরে আরেকটি দেশ। তারা বাংলাদেশ রফতানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেপজা) নামের আলাদা কর্তৃপক্ষ দ্বারা পরিচালিত হয়। এর আইনকানুনও আলাদা। প্রথানুসারে কোনো কর্মরত অথবা অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তার দ্বারা বেপজা পরিচালিত হয়। নিরাপত্তার জন্যও অবসরপ্রাপ্ত সৈনিকদের নিয়োগ করে থাকে অনেক কারখানা। ইপিজেডের শ্রমিকদের বেতন ও কাজের পরিবেশ তুলনামূলক ভালো। তবে শুরুর দিকে সেখানে শ্রমিক ইউনিয়ন নিষিদ্ধ ছিল। আন্তর্জাতিক চাপের মুখে ২০০৪ সালে কারখানাভিত্তিক শ্রমিক সংগঠন করার অনুমতি দেয়া হয়।
বাংলাদেশের প্রধান দুটো রাজনৈতিক দল বিএনপি ও আওয়ামী লীগের মধ্যে রক্তাক্ত সংঘাত থাকলেও বাংলাদেশের গার্মেন্ট খাত রক্ষার ব্যাপারে তারা একমত। ২০১০ সালে ব্যাপক বিক্ষোপের পর শেখ হাসিনা গার্মেন্টের ন্যূনতম মজুরি ২০ ডলার থেকে বাড়িয়ে ৩৭ ডলারে উন্নীত করেন। তবে অনেক শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ডের নির্বাহীরা বেতন বাড়ানোর পক্ষে কথা বললেও শেখ হাসিনার সরকার তাতে সায় দিচ্ছে না। গত জুনে সুইডেনের রিটেইলার এইচঅ্যান্ডএম শ্রমিকদের দাবি-দাওয়ার ব্যাপারটি সুরাহা করার অনুরোধ করে।
তবে অনেক বড় বড় কোম্পানিও ব্যাপক দুর্নাম কুড়িয়েছে। ওয়ার অন ওয়ান্ট নামের একটি অলাভজনক গোষ্ঠী দেখতে পায় নাইকি, পুমা ও অ্যাডিডাসের মতো কোম্পানির পোশাক তৈরি করছে এমন কারখানাগুলোও ন্যূনতম মুজরির চেয়েও কম বেতন দিচ্ছে। তাদের বিররুদ্ধে শ্রমিকদের হয়রানি ও যৌন নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। টমি হিলফিগারের পোশাক তৈরি করে এমন একটি কোম্পানির আগুন লেগে ২৯ শ্রমিক নিহত হয়।
যুক্তরাষ্ট্রের পোশাক আমদানিকারক সংগঠনের সভাপতি জুলিয়া কে হাগস বলেন, তারাও চান বাংলাদেশের পোশাক কারখানার উন্নত ও মানসম্মত পরিবেশ। তিনি বলেন,
কেউ বাংলাদেশে মজুরি বাড়াতে বাধা দিচ্ছে না। বেতন অবশ্যই বাড়ানো উচিত। তবে বাংলাদেশের অনেক গার্মেন্ট মালিক সন্দিহান যে আমদানিকারকরা সত্যিই মজুরি বাড়াতে চায় কি না। অনেক বাংলাদেশী শ্রমিক নেতাও বলেছেন, বিদেশি ব্র্যান্ডগুলো বাংলাদেশের শ্রমিকদের শোষণ করছে। প্রভাবশালী শ্রমিক নেতা রায় রমেশ চন্দ্র বলেন, পুরো সাপ্লাইং চেইনকে আমাদের সঠিক পথে নিয়ে আসতে হবে। ব্র্যান্ডগুলোকে তাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। উত্পাদকদেরও তাদের দায়িত্ব পালন করতে হবে। সরকারকেও আন্তর্জাতিক শ্রমমানকে নিশ্চিত করতে হবে।
নব্বইয়ের দশকে বাংলাদেশ শিশুশ্রম বন্ধ ও কর্ম পরিবেশের উন্নতির মাধ্যমে আন্তর্জাতিক চাপকে সামাল দিয়েছে। তবে বর্তমানে শ্রমিকদের দাবি সংগঠন করার অনুমতি ও বেতন বৃদ্ধির জন্য দর কষাকষির সুযোগ। এজন্য দরকার রাজনৈতিক সদিচ্ছা। কিন্তু এখন রাজনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করছে গার্মেন্ট খাতসহ ব্যবসায়িক স্বার্থ। এফবিসিসিআই সভাপতি একে আজাদ গার্মেন্ট খাতের রাজনৈতিক ভূমিকার কথা অস্বীকার করেন। তিনি বলেন,
আমরা ক্ষমতাধর নই। ক্ষমতাধর হলেন রাজনীতিকরা। ক্ষমকাধর হলো গণমাধ্যম।
অনেক গার্মেন্ট মালিক রাজনীতিতে যোগদান করেছেন এবং গণমাধ্যমের মালিক হয়েছেন। তারা সংবাদপত্র কিনে নিচ্ছেন অথবা টিভি চ্যালেন চালু করছেন। দেশের অন্যতম গার্মেন্ট ব্যবসায়ী একে আজাদও একটি বাংলা দৈনিক (সমকাল) ও একটি টিভি চ্যানেলর (চ্যালেন টুয়েন্টিফোর) মালিক। অনেক পশ্চিমা কূটনীতিক ব্যক্তিগত আলাপচারিতায় বলেছেন, বাংলাদেশের গণমাধ্যমগুলোর খবরে দেখানো হয় শ্রমিক আন্দোলনের ফলে কতটা ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে। শ্রমিকদের উদ্বেগগুলো সেখানে উপেক্ষিত থাকে।

One mosquito coil ‘equals 100 cigarettes’


One mosquito coil equals 100 cigarettes

Smoke emitted from one mosquito repellent coil is equivalent to those of 100 cigarettes, thus causing harm to a large number of people, an Indian expert has said.

The information was found in a research work conducted by Pune-based Chest Research Foundation.

Our experiment showed that the use of one mosquito coil for eight hours is equivalent to the smoking of 100 cigarettes, BioScholar, NDTV and Times of India reported on Thursday quoting its director Sandeep Salvi as saying at a New Delhi conference on air pollution.

The event was organised by the Centre for Science and Environment (CSE), along with the Indian Council for Medical Research and the Indian Medical Association.

Salvi said there is a lack of awareness about the impact of air pollution on human health.

Pointing out the lack of research culture among Indian doctors, he said that indoor air pollution too is a health risk factor.

Participants at the event, which included doctors and health researchers, also spoke about vehicular air pollution in the Indian capital.

According to estimates, about 55 percent of Delhis population lives within 500 metres from main roads and is, therefore, prone to a variety of physical disorders, NDTV said.

The vehicular pollution is a major concern for the environment. The rising incidents of genetic disorder have a lot to do with air pollution, said Sanjeev Bagai, the chief executive officer of Batra Hospitals.

India loses one million children under five because of respiratory problems every year, he added.

Bagai said industries also contribute to the air pollution and these need to be shifted out of the capital.

Source: BDNEWS

হলিউড, লস এঞ্জেলেস এ বাদাম এর আত্মপ্রকাশ



http://www.prothom-alo.com/detail/date/2012-07-07/news/271545
হলিউড, লস এঞ্জেলেস এ বাদাম এর আত্মপ্রকাশ

একুশ নিউজ মিডিয়াঃ লস এঞ্জেলেস, ২৪ জুন:বাংলা সংস্কৃতির বিকাশ ও ঐতিহ্য সমুন্নত রেখে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেবার প্লাটফর্ম হিসাবে কাজ করা, সহায়তা ও পরামর্শ দিতে লস এঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্ণিয়া, ইউ এস এ-তে আত্মপ্রকাশ করেছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ডাইভার্সিটি আর্টস অ্যান্ড মিডিয়া (বাদাম BADAM)। স্থানীয় কবি, সাহিত্যিক, দার্শনিক, সাংবাদিক, অভিনেতা, ক্রীড়াবিদ ও সুধীজন এই আলোচনা সভায় স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করে ‘বাদাম’ -এর প্রতি সম্পৃক্ততা ঘোষণা করেন।

BADAM Los Angelesরবিবার লিটল বাংলাদেশ এলাকায় আলাদীন রেস্তোরায় এক আলোচনা সভার মাধ্যমে সংগঠনটির আত্মপ্রকাশ ঘটে। সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের উদ্যোক্তারা এর উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য এবং কর্মপদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানান। প্রবাসের মূলধারায় দেশীয় বাংলা সংস্কৃতির বিকাশের লক্ষ্যে দেশ-প্রবাসের কবি, সাহিত্যিক, দার্শনিক, সাংবাদিক, অভিনেতা, ক্রীড়াবিদদের যোগসূত্র হিসাবে কাজ করবে এই সংগঠন।

সুদীর্ঘ সময় পরে হলেও নতুন প্রজন্মের সাথে আমাদের বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতির পরিচয় ও তাদেরকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে ‘বাদাম-নতুন প্রজন্ম’ নামে সংগঠনের একটি শাখা খোলার প্রস্তাবনা করা হয়। প্রতিমাসে একবার করে নতুন প্রজন্মদের নিয়ে স্কুলশিক্ষার আদলে ইন্টারএক্টিভ কর্মশালার প্রস্তাব করা হয়।

BADAM Los Angelesকাজী মশহুরুল হুদার সঞ্চালনায় সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংগঠনের অতীত-বর্তমান-ভবিষৎ নিয়ে আলোচনা করেন মিজান শাহীন, কাজী রহমান, আলী আশরাফ রুনু, ডাঃ নাসির আহমেদ অপু, একতার ভূঁইয়া, সৈয়দ এম হোসেন বাবু, তারিক বাবু, ফ্রেন্ডস বাবু, দিলশাদ রহমান, মার্টিন রহমান, মিঠুন চৌধুরী, রওনাক সালাম, বুলবুল সিনহা, আব্দুল খালেক, স্যামী নোবেল, খাজা মইনুদ্দীন চিশতী, শহীদ আলম, শাহানা পারভীন, সাদিয়া রহমান, জাবিন হিল্টন, মাহবুবা রশীদ, শামসুন্নাহার মনি প্রমুখ।

BADAM Los Angelesফারহানা সাঈদ সবার বক্তব্যের সারমর্ম তুলে ধরে বলেন, সবার বক্তব্য একই সূত্রে গাঁথা -সংস্কৃতি সার্বজনীন, বহমান সংস্কৃতিকে মূলধারার সংস্কৃতির সাথে যুক্ত করে নিজ দেশের ঐতিহ্য সমুন্নত রাখতে হবে।

BADAM Los Angeles
বাদাম-এর প্রধান উপদেষ্টা এম কে জামান নান্টু তার বক্তব্যে বলেন, লস এঞ্জেলেস এ কবি, সাহিত্যিক, দার্শনিক, সাংবাদিক, অভিনেতা, ক্রীড়াবিদদের এক অপূর্ব সম্মীলন ঘটাবে এই বাদাম। বাদাম ও স্থানীয় বাংলাদেশী ডাক্তারদের সহযোগীতায় লিটল বাংলাদেশ-এ ফ্রি সানডে ক্লিনিক খোলার ঘোষণা দেন তিনি।

BADAM Los Angelesনব গঠিত বাদাম’র আহ্বায়ক জাহান হাসান সভার শেষে সংগঠনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য তুলে ধরেন ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বলেন, আমেরিকায় দ্বিতীয় বাংলাদেশী অধ্যুষিত এলাকায় এই ধরনের একটি শক্তিশালী সাহিত্যিক-সামাজিক সংগঠনের প্রয়োজনীয়তা অনেকদিন ধরে অনুভূত হচ্ছিল। অনেক প্রবাসী তাদের নিজ নিজ অবস্থানে সমুজ্জ্বল হলেও সংস্কৃতি প্রসারে নিরপেক্ষ প্লাটফর্মের অভাবে এগিয়ে আসতে পারছেন না। তাদের অভিজ্ঞতা, সার্মথ্য ও দেশকে ভালবাসা বহিঃপ্রকাশ ঘটাবে এই বাদাম। নিয়মিতভাবে প্রবাস ও দেশের গুণীজনদের সম্মাননা প্রদান করার ঘোষণা দেন তিনি।

২১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি গঠনের মাধ্যমে বাদাম’র কাজ শুরু করেছে। অচিরেই পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে। পূর্ণাঙ্গ কমিটি পরবর্তীতে বিভিন্ন ষ্টেটে কমিটি গড়ে পর্যায়ক্রমে সারা উত্তর আমেরিকায় সম্প্রসারিত করার লক্ষ্যে কাজ করবে। ঈদের পরে স্থানীয় প্রবাসীদের সামনে পূর্নাংগ কমিটি ঘোষণা করা হবে। সংগঠনের উদ্যোক্তারা বিভিন্ন পর্যায়ের প্রবাসীদের সহায়তা কামনা করে জানান, কবি,সাহিত্যিক, শিল্পী, সাংবাদিক, অভিনেতা, ক্রীড়াবিদদের সমন্বয়ে সংগঠনটি গঠিত হলেও বাংলা সংস্কৃতির বিকাশ ও ঐতিহ্য গড়তে কাজ করতে ইচ্ছুক যে কেউই এর সঙ্গে যুক্ত হতে পারবেন।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী প্রবাসে শিল্পকলা প্রসারে বাদাম-এর মত সংগঠনের সাথে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন। সংগঠনের কয়েকজন পরিচালকের সাথে ঢাকায় এক আলোচনা সভায় তিনি এই কথা বলেন।

লস এঞ্জেলেসে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি শীর্ষক আলোচনা সভা



লস এঞ্জেলেসে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি শীর্ষক আলোচনা সভা

মানবাধিকার পরিস্থিতির অবনতিতে লস এঞ্জেলেস প্রবাসীদের উদ্বেগ
মে ৩, ২০১২, লস এঞ্জেলেসঃ বাংলাদেশের অবনতিশীল মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা গভীর উদ্বেগের সাথে পর্যবেক্ষন করছে লস এঞ্জেলেস প্রবাসীরা। বিরোধী দলের উপর নজিরবিহীন আগ্রাসন ও হয়রানি, নাগরিকদের অধিকার ও মর্যাদা ক্ষুণ্ণ করার অপচেষ্টার প্রতি নিন্দা ও ঘৃণা জানিয়েছেন তারা।

BADAM Los Angelesগত রবিবার লিটল বাংলাদেশ, লস এঞ্জেলেস অলিম্পিক পুলিশ ষ্টেশনের কমিউনিটি সেন্টারে একুশ নিউজ মিডিয়া ও বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ডাইভার্সিটি আর্টস এন্ড মিডিয়া (বাদাম) এর উদ্যোগে সমবেত বিভিন্ন কমিউনিটির নেতারা ও বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ বাংলাদেশের বর্তমান রাজনৈতিক ও সামাজিক প্রেক্ষাপটে মানবাধিকারের চরম লংঘনে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

বক্তারা বলেন, কিছু কিছু সুবিধাবাদী রাজনৈতিক নেতাদের ভুল সিদ্ধান্ত ও সংসদকে অকার্যকর করে রাখায় দেশ এখন শুধু প্রধানমন্ত্রীর উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে। এতে সামাজিক উন্নয়ন প্রচণ্ড ভাবে হুমকির সম্মুখীন। দেশ ও দশের উন্নয়নে যোগ্য রাজনৈতিক নেতৃত্বের বিকল্প নাই। মেধা বিকাশে দলীয়করণের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য শিক্ষিত সমাজকে সোচ্চার হবার আহ্বান জানানো হয়।

BADAM Los Angelesবাংলাদেশে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে যে পরিমাণ হিংসা-বিদ্বেষ তাতে দেখে যে কারো মনে হতে পারে এখানে গৃহযুদ্ধ চলছে। প্রবাসের মতো দেশেও যেন সব দলের নেতারা এক প্লাটফর্মে বসে কথা বলার পরিবেশ তৈরী করতে পারে তার জন্য সহনশীলতা তৈরি করতে হবে। বাংলাদেশে রাজনৈতিক প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে ক্ষমতার লিপ্সাই প্রধান। স্থানীয় উন্নয়নে সাংসদদের ভূমিকায় অসন্তোষ প্রকাশ করে দেশের স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে এনে শুধু নিজেদের জন্য নয় বরং দেশের উন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখার আহ্বান জানানো হয়।

BADAM Los Angelesদেশের নাজুক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও নাগরিকদের জান-মালের নিশ্চয়তা বিধানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীদের দলের উর্ধে উঠে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়। বাংলাদেশে আজ ব্যক্তির কোনো নিরাপত্তা নেই। রাষ্ট্রে খুন, গুম, ধর্ষণ একের পর এক বেড়েই চলেছে। সচিবালয়ে বোমা হামলা ও বাসে অগ্নিসংযোগ ঘটনায় কয়েকদিনের মাথায় বিরোধীদলের নেতৃবৃন্দকে গ্রেফতার করে জেলে অন্তরীন করা হয় অথচ মাসের পর মাস পেরিয়ে গেলেও সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যাকাণ্ডের কোন কূলকিনারা না হওয়াতে দলীয় হস্তক্ষেপে আশংকায় উদ্দ্বেগ প্রকাশ করা হয়। খুন হওয়া সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনির ঘটনা সরকার যেন ইচ্ছা করে ডিপ ফ্রিজে রেখে দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে অপশক্তিরা উৎসাহিত হয়। এ পরিস্থিতিতে দেশের সাংবিধানিক অভিভাবক নির্বাচিত সরকারের নির্লিপ্ততার নিন্দা জানিয়ে বক্তরা বলেন, কোনো কোনো ক্ষেত্রে মানবিক গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নেয়ার কাজে সরাসরি পুলিশ বহিনী ও দলীয় ক্যাডারদের ব্যবহার সামগ্রিক পরিস্থতিকে আরো জটিল করেছে। ক্ষমতা চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত নয় – তাই শুধু ক্ষমতার পরিবর্তন নয়, অর্থবহ জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানানো হয়। দলীয় দূর্নীতিবাজদেরও ছাড় দেওয়া চলবে না। এতে নিজ দলের অপরাধীদেরকেও বিচারের আওতায় আনার ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার যেন আন্তর্জাতিক মানের হয় তার প্রতি আইনজীবী ও সচেতন সমাজের লক্ষ্য রাখার অনুরোধ জানানো হয়।

মানুষের সামাজিক নিরাপত্তা বলে কিছু নেই। ব্যবসায়ীদের আজ রাজনীতিতে আধিপত্যতা। তার ফলশ্রুতিতে প্রিন্ট এবং ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াতে অপশক্তির উত্থান ঘটছে। প্রকৃত ঘটনা উদ্বঘাটিত হচ্ছেনা। সাংবাদিকরাও আইনের উর্ধে নন। সাংবাদিকরা নিজেদের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদ সঠিকভাবে করছে না বলেই অপশক্তিরা এখনো সংগঠিত হচ্ছে। সাংবাদিকদের ওপর নির্যাতনের বিরুদ্ধে সর্বস্তরের জনগণ পাশে প্রবাসীরা ও সোচ্চার আছে। সাংবাদিকদের মধ্যে ঐক্যর ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

দেশের উন্নয়নে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে এনে বিদেশী বিনিয়োগকে আকৃষ্ট করার কোন বিকল্প নেই বলে প্রবাসীরা মনে করেন। বক্তারা বলেন, দেশের ভাবমূর্তি এখন আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে অনেক খারাপ। সবগুলো রাষ্ট্রীয় খাতই এত বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত যে বিদেশিরা কোনো সহায়তা দিতে ভরসা পাচ্ছে না। তারা মনে করছে, এখানে কিছু দিলেই তা ব্যক্তি বিশেষের পকেটে চলে যাবে। এটা দেশের উন্নয়নের কোনো কাজে লাগবে না। হত্যা, গুম, নারী নির্যাতনরোধে বিশ্বব্যাপী জনমত তৈরিতে পরিবর্তিত বিশ্ব প্রেক্ষাপটে প্রবাসে বসবাসরত প্রবাসীদের উৎকন্ঠা তাদের নিজ নিজ কাউন্সিলম্যান, সিনেটরদেরকে অবহিত করার উপর তাগিদ দেওয়া হয়। দেশের এ নাজুক পরিস্থিতিতে দেশের সরকারকে আরো দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখার পাশাপাশি এবং জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দায়িত্বশীল মহলকে যথাযথ ভূমিকা রাখার আহবান জানানো হয়।

দেশের অর্থনীতিতে প্রবাসীদের অবদান স্বীকৃত হয়ে আসলেও রাজনৈতিক অঙ্গনে প্রবাসীদের গুরুত্ব দেওয়ার ধারা তৈরী করতে হবে। প্রবাসীদের আওয়াজ যাতে সংসদ ও জনগণের মাঝে তুলে ধরা যায় তার জন্য প্রবাসী উইন্ডো নামে একটি ডিজিটাল প্লাটফর্ম তৈরী করার পরামর্শ দেওয়া হয়। স্বদেশে নিরাপদ জীবনের অঙ্গীকারে প্রবাসীদের হয়রানী বন্ধে দেশের স্থানীয় প্রশাসনকে সক্রিয় হবার আহ্বান জানানো হয়। সহনশীলতার পরিবেশ ও আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে দেশের উন্নতির লক্ষ্যে বিজ্ঞ প্রবাসীদের নিয়ে একটি পলিসি ইন্সিটিউট তৈরির আহ্বান জানানো হয়। পারষ্পরিক শ্রদ্ধাবোধের মাধ্যমে পরিশীলিত রাজনৈতিক সংষ্কৃতির উন্মেষ ঘটিয়ে যুগের চাহিদা অনুযায়ী দেশ গড়ার আহ্বান জানানো হয়।

সাম্প্রতিক বাংলাদেশ ও প্রবাস ভাবনা শীর্ষক এই আলোচনায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ইসমাইল হোসেন, ড্যানী তৈয়ব, মুশফিকুর চৌধুরী খসরু, মাহতাব আহমেদ, তারিক বাবু, শাহানা পারভীন, এম এ বাতেন, মারুফ ইসলাম, শফিঊল আলম বাবু, মোঃ এস জোহা বাবলু, মুজিব সিদ্দিকী, শামসুদ্দিন মানিক, এম এ বাসিত, আনিসুর রহমান, ডাবলু আমিন, লায়েক আহমেদ, এম কে জামান, মোঃ গোলাম সারোয়ার, ফয়সাল আহমেদ তুহিন, রওনাক সালাম, আশরাফ এইচ আকবর, মার্টিন রহমান, জসীম আশরাফী, অবঃ মেজর হামিদ, ফারহানা সাঈদ, ডাঃ আবুল হাশেম, মোসাম্মৎ ফরিদা, সোহেল রহমান বাদল প্রমুখ।

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- আলী তৈয়ব, মাসুদ চৌধুরী, ইশতিয়াক চিশতী, কাঞ্চন চৌধুরী, মোহাম্মদ আলী খান, বুলবুল সিনহা, মোঃ ময়েজ উদ্দিন, শফিক রহমান, নাসির উদ্দিন জেবুল, ফারুক হাওলাদার, ইফতেখার রহমান, ইলিয়াস খান, মোতিয়ার রহমান প্রমুখ।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন কাজী মশহুরুল হুদা ও সৈয়দ এম হোসেন বাবু।

সার্বিক অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন আয়োজক সংগঠন একুশ নিউজ মিডিয়ার পরিচালক জাহান হাসান।
Pic Link: http://www.facebook.com/media/set/?set=oa.425613467460482

লস এঞ্জেলেসে ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের ২০১২ সনের সম্মেলন অনুষ্ঠিত


Bangladesh Awami League BAL বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

Bangladesh Awami League BAL ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

লস এঞ্জেলেসে ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের ২০১২ সনের সম্মেলন অনুষ্ঠিত

শফিকুর রহমান সভাপতি ও ডাঃ রবিউল আলম রবি সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত
BADAM Los Angelesসোমবার, ৯ জুলাই ২০১২ঃক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের ২০১২ সনের সম্মেলন লস এঞ্জেলেসের শ্যাটো রিক্রিয়েশনাল সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় গত ৮ ই জুলাই রবিবার। সম্মেলন ২০১২ প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা ও সংগঠক দারা বিল্লাহের সভাপতিত্বে স্থানীয় আওয়ামী লীগের অনেক নেতা-কর্মীরা এই দীর্ঘ প্রতীক্ষিত সম্মেলনে যোগ দেন। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ডঃ সিদ্দিকুর রহমান। প্রধান বক্তা ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ-এর সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ ও বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ-এর সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মহিউদ্দীন দেওয়ান। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ-এর ভাইস প্রেসিডেন্ট আকতার হোসেন, প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম দুলাল ও যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। BADAM Los Angeles

ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শফিকুর রহমানকে সভাপতি ও ডাঃ রবিউল আলম রবিকে সাধারণ সম্পাদক করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। লস এঞ্জেলেস মেট্রোপলিটন আওয়ামী লীগের নতুন কমিটির সভাপতি হয়েছেন মাহতাব উদ্দিন টিপু এবং সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন চিন্ময় রায় চৌধুরী। এ ছাড়া শওকত চৌধুরীকে ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট ছাত্রলীগের আহ্বায়ক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট ছাত্রলীগের কমিটি হয়েছে।

BADAM Los Angelesসম্মেলনে বক্তব্য দেন ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি সোহেল রহমান বাদল, ক্যালিফোর্ণিয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দীন খান ফারুক। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন শামীম হোসেন, মিজান শাহীন, শরীফ চান, জাকির খান, সাঁতারু মোশারফ হোসেন, মমিনুল হক বাচ্চু প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সমাপনী বক্তব্যে দারা বিল্লাহ আগত অতিথিবৃন্দ, কাউন্সিলর ও উপস্থিত সবাইকে শান্তিপূর্নভাবে এই সম্মেলন সফল করবার জন্য ধন্যবাদ জানান।

অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন চিন্ময় রায় চৌধুরী ও শিউলী মিজান। তিন পর্বের এই অনুষ্ঠানে স্থানীয় শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করেন।
ভিডিও নিউজ:
ছবি লিঙ্কঃ http://www.facebook.com/media/set/?set=a.10151007409311897.451368.826936896&type=3&l=fd61bb753f

ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ ইনক এর সাংবাদিক সম্মেলন
গত ৮ ই জুলাই রবিবার ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ ইনক স্থানীয় এক রেষ্টুরেন্টে এক সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে। সভায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে লস এঞ্জেলেস এ স্বাগত জানানো হয়। পূর্বে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের সাথে ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ ইনকের প্রতিনিধিরা তাদের হোটেলে সাক্ষাত করে অল্প সময়ের মধ্যে আয়োজিত এই সম্মেলনে কোন কমিটি ঘোষণা না দেয়ার অনুরোধ জানান। তারা সময় দ্বারা নিরীক্ষিত বঙ্গবন্ধু প্রেমী মুজিব সেনাদের একত্রিত করে ক্যালিফোর্ণিয়ায় দ্বিধা-বিভক্ত আওয়ামী লীগের সকল নেতা কর্মীদের নিয়ে সম্মেলন করার অনুরোধ জানান। তারা গত ২০ বছরে ক্যালিফোর্ণিয়ায় ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ ইনকের কার্যক্রম তুলে ধরেন। ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ ইনকের বর্তমান সভাপতি হেলাল আহমেদ বিভেদ নয়, ঐক্যের মাধ্যমে প্রবাস থেকে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও আমেরিকায় সংগঠন করার আইন-কানুন মেনে ৯০ দিনের মধ্যে ক্যালিফোর্ণিয়া, অরিগন, নেভাডা, আইডাহো, ইউটা, ওইয়ামিং, অ্যারিজোনার আওয়ামী লীগ সমর্থক নেতা কর্মীদের নিয়ে বৃহত্তর ওয়েস্ট কোষ্ট আওয়ামী লীগ গঠনের ঘোষণা দেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য দেন তৌফিক সোলায়মান তুহিন,জহির আহমেদ পান্না, আবু হানিফা, মোঃ বিক্রম উদ্দিন আহমেদ, আব্দুল খালেক প্রমুখ।

ঢাকা- নিউইয়র্কের মাঝে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট অচিরেই চালু হচ্ছে।


ঢাকা- নিউইয়র্কের মাঝে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট অচিরেই চালু হচ্ছে।

একুশ নিউজ মিডিয়া,লস এঞ্জেলেস, ২৮ জুলাই : বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান এমপি তার ব্যক্তিগত সফরের অংশ হিসাবে নবনির্বাচিত ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আয়োজিত ইফতারি ও মতবিনিময় সভায় স্থানীয় প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাংলার মাটিতে হবেই। ‘৭৫-এ আমরা বঙ্গবন্ধুকে রক্ষা করতে পারিনি। বঙ্গবন্ধুকে রক্ষা করতে না পারায় ‘৭১-এ পরাজিত যুদ্ধাপরাধীরা এদেশে রাজনীতি করার সুযোগ পেয়েছিলো। যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবীতে তিনি প্রবাসীদের সোচ্চার হবার জন্য আহ্বান জানান। BADAM Los Angeles

বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান একুশ নিউজ মিডিয়ার জাহান হাসানের সাথে এক সাক্ষাৎকারে বলেন, গার্মেন্ট শিল্পের মত বাংলাদেশের পর্যটন খাতকে আরও বিকশিত করার লক্ষ্যে প্রাইভেট ট্যুর অপারেটরদের উৎসাহিত করার জন্য অচিরেই প্রনোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করা হচ্ছে। ট্যুর বাসসহ পর্যটন খাতে ব্যবহৃত সামগ্রীর উপর আমদানি কর কমানো হচ্ছে। ১২টি দেশে পর্যটন মেলাতে বাংলাদেশের প্রাইভেট ট্যুর অপারেটররা অংশ নিচ্ছে। ইতিমধ্যে জার্মানী, স্পেন ও জাপান থেকে ট্যুর অপারেটরদের প্রতিনিধিরা বাংলাদেশ সফর করে গেছে।

BADAM Los Angeles Ekush News Media Jahan Hassanআমেরিকা ও ইউরোপ থেকে আগত টুরিস্টদের অন-এরাইভ্যাল ভিসা প্রদান করা হচ্ছে। গত বছর বিদেশ থেকে ৫ লাখেরও বেশী পর্যটক বাংলাদেশ ভ্রমণ করে গেছেন। ২০১০-১১ অর্থবছরে বিদেশি পর্যটকদের বাংলাদেশ ভ্রমণ বাবদ মোট ৫৯৪ কোটি ৬৬ লাখ ৬০ হাজার টাকা বৈদেশিক মুদ্রা অর্জিত হয়েছে। দেশের মাঝে পর্যটনকে আকর্ষনীয় করার লক্ষ্যে প্রতি বছর ৬টি পর্যটনমেলার আয়োজন করা হচ্ছে।

পর্যটন মন্ত্রী বলেন পর্যটন শিল্পকে গুরুত্ব দিয়ে কক্সবাজারকে পৃথিবীর সুন্দরতম পর্যটন নগরী হিসাবে গড়ে তোলার অংশ হিসাবে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ নামে একটি সংস্থা মন্ত্রীপরিষদ ক্যাবিনেট মিটিংএ অনুমোদিত হয়েছে। আগামী সংসদে এই বিল উত্থাপণ করা হবে। এতে বিদেশী পর্যটকদের জন্য এক্লুসিভ টুরিস্ট জোন থাকবে। ২০১৪ সালের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপকে সামনে রেখে কক্সবাজার স্টেডিয়াম নির্মিত হতে যাচ্ছে। তিনি বলেন, পর্যটনের এই বিশাল সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে হবে। এতে দেশের ভাবমূর্তির উন্নতি হবে। বৈদেশিক মুনাফা অর্জন করা সম্ভব হবে।

BADAM Los Angeles Ekush News Media Jahan Hassanমন্ত্রী লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান বলেন, তিন বছর পর ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিশেন অর্গানাইজেশন (আইকাও) এর কালো তালিকা থেকে মুক্ত হলো বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। ২০০৯ সালের জুনে ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন (আইকাও) বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) কার্যক্রমে নানা অসঙ্গতির কারণে বাংলাদেশকে নিরাপত্তা উদ্বেগের বিষয়ে সিগনিফিকেন্ট সেফটি কনসার্নের (এসএসসি) তালিকাভুক্ত করে। যা বিমান চলাচল ব্যবসায় কালো তালিকা হিসেবে ধরা হয়। এদিকে এসএসসিতে থাকার ফলে আমেরিকান ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ) বেবিচককে ক্যাটাগরি-২ এ রেখেছে।

BADAM Los Angeles Ekush News Media Jahan Hassanতিনি বলেন, এই কালো তালিকা থেকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বের হয়ে আসার ফলে আগামী ৬ মাসের মধ্যে ঢাকা- নিউইয়র্কের মাঝে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট চালু হবার প্রবল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। বাংলাদেশ ২টি অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৭৭-৩০০ বিমান কিনেছে। তিনি বলেন, বিশ্বের উন্নত বিমানবন্দরগুলোর সাথে সামঞ্জস্য রেখেই এ বিমানবন্দরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। এজন্য পুরো বিমানবন্দরকেই অত্যাধুনিক প্রযুক্তিসম্পন্ন নিরাপত্তা বলয়ের আওতায় আনা হচ্ছে। তাছাড়া বিমানবন্দরের সংরক্ষিত এলাকায় অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে স্থাপন করা হচ্ছে স্বয়ংক্রিয় এর্লাম ও ভিডিও সার্ভিলেন্স সিস্টেম। একই সাথে যাত্রীদের দেহতল্লাশি, ব্যাগেজ ও কেবিন ব্যাগেজ স্ক্যানিং পদ্ধতিতেও অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের পরিবহন নিরাপত্তা প্রশাসন (টিএসএ ) এবং আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রত্যয়ন অনুসারে বিস্ফোরকদ্রব্য ও ধাতব-অধাতব পদার্থ শনাক্ত করতে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে স্থাপিত হচ্ছে সিটি প্রযুক্তির স্ক্যানিং মেশিন। পাশাপাশি বিমানবন্দরের সার্বিক নিরাপত্তা কার্যক্রম তদারকি ও নিয়ন্ত্রণের জন্য খোলা হচ্ছে নিরাপত্তা কন্ট্রোল সেন্টার। বাণিজ্যিকভাবে বিমানকে লাভজনক করার জন্য ১০টি উড়োজাহাজ সংগ্রহ, সার্বিক খরচ কমানো ও ফ্লাইট সূচি পরিবর্তনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

BADAM Los Angeles Ekush News Media Jahan Hassanক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ আয়োজিত ইফতার ও মতবিনিময় অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে বারব্যাঙ্ক নির্বাচনী এলাকার ডেমোক্রেটিক ইউ এস রিপ্রেজেন্টেটিভ কংগ্রেসম্যান এডাম শীফ উপস্থিত ছিলেন। তিনি বাংলাদেশের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের পর্যটন শিল্পসহ অন্যান্য খাতে অবিরাম সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

ডাঃ রবি আলমের সঞ্চালনা ও শফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে লস এঞ্জেলেসের কন্সাল জেনারেল এনায়েত হোসেন, ভাইস কন্সাল, কমার্শিয়াল কন্সাল সহ অনেক স্থানীয় প্রবাসীরা এই উপলক্ষে উপস্থিত ছিলেন।

ছবি লিঙ্কঃ
http://www.facebook.com/media/set/?set=a.10151048843531897.456294.826936896&type=3&l=0e4bd1f1d9

লস এঞ্জেলেসে সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন উদযাপন


ভিডিও লিঙ্কঃ

ছবি লিঙ্কঃ
http://www.facebook.com/media/set/?set=a.10151047784091897.456144.826936896&type=3&l=fa4ce0919b

লস এঞ্জেলেসে সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিন উদযাপন
একুশ নিউজ মিডিয়া,লস এঞ্জেলেস, ২৮ জুলাই : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একমাত্র ছেলে তথ্য-প্রযুক্তিবিদ সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৪১তম শুভ জন্মদিন উপলক্ষে গত রাতে লস এঞ্জেলেসের গ্ল্যান্ডেল শহরে ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগ তাঁর জন্মদিন উদযাপন করেছে।

এ উপলক্ষে বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান এমপি ইফতারির পর স্থানীয় প্রবাসীদের উপস্থিতিতে ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ডাঃ রবি আলমের বাসভবনে সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিনের কেক কাটেন।

ফারুক খান জয়কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান এবং বলেন, বাংলাদেশ নতুন নেতৃত্ব চায়। লস এঞ্জেলেসে আওয়ামী লীগের মাঝে নতুন-পুরাতনদের নিয়ে যে সমন্বয় গড়ে উঠেছে, সেই সমন্বয়ের মাধ্যমেই বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা দেশকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য একাত্ম হয়ে কাজ করে যাবার আহ্বান জানান।

ক্যালিফোর্ণিয়া ষ্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুর রহমান লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খানের মুখে এক টুকরো কেক তুলে দিয়ে জয়ের জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান।

জন্মদিন উদযাপনের সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মোস্তাইন দারা বিল্লাহ, হাবিব আহমেদ টিয়া, মোঃ শামীম হোসেন, মাহাতাব আহমেদ টিপু, মিজানুর রহমান শাহীন, তোফাজ্জল কাজল, আলী আহমেদ প্যারিস, দিদার আহমেদ, চিন্ময় রায় চৌধুরী, সাঁতারু মোশারফ হোসেন, আমিন আলম পাপ্পু, এম কে জামান, আতিক রহমান, মিঠুন চৌধুরী, সাইফুর রহমান ওসমানী জিতু ও মমিনুল হক বাচ্চু প্রমুখ।

এ সময় সবাইকে সজীব ওয়াজেদের জন্মদিনের কেক দিয়ে আপ্যায়িত করা হয়। ডাঃ রবি আলম ও মিসেস রবি সবাইকে ক্যালিফোর্ণিয়ায় প্রথমবারের মত সজীব ওয়াজেদ জয়ের শুভ জন্মদিন পালন করায় কমিউনিটির সবাইকে শুভেচ্ছা জানান।

অলিম্পিক গেমস-২০১২ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সজীব ওয়াজেদ জয় এখন লন্ডনে রয়েছেন। তাকে ফোন করে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানো হয়। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালে সজীব ওয়াজেদের জন্ম হয়। বর্তমানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে তথ্য-প্রযুক্তিবিদ হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার তথ্য-প্রযুক্তি উপদেষ্টা হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন।

%d bloggers like this: