যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ

মে দিবসের বিক্ষোভে উত্তাল যুক্তরাষ্ট্র, লস অ্যাঞ্জেলেস বিমানবন্দর বন্ধের উপক্রম
পহেলা মে দিবস উপলক্ষে গতকাল (মঙ্গলবার) যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়েছে। অকুপাই ওয়াল স্ট্রিট আন্দোলনের নেতা-কর্মীরাই মূলতঃ এ বিক্ষোভের নেতৃত্ব দিয়েছেন। বিক্ষোভে উত্তাল সিয়াটেল শহরে উত্তেজিত জনতা বহু ভবনের জানালা ভেঙেছে আর নিউ ইয়র্ক এবং অকল্যান্ড শহরে পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। এসব সংঘর্ষে বহু মানুষ আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।
এ ছাড়া, প্রচণ্ড বিক্ষোভের মুখে লস অ্যাঞ্জেলেস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বন্ধের উপক্রম হয়েছিল। এসব শহর থেকে বহু বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে শুধু নিউ ইয়র্ক শহর থেকেই আটক করা হয়েছে অন্ততঃ ৪০ জন। মার্কিন সমাজে তীব্র অর্থনৈতিক বৈষম্যের বিরুদ্ধে চলমান অকুপাই আন্দোলন আবার চাঙ্গা করার জন্য এর আয়োজকরা গতকাল নতুন বিক্ষোভের ডাক দেন। অবশ্য, বেশ কিছুদিন আগে থেকেই মে দিবস উপলক্ষে নিউ ইয়র্কসহ বিভিন্ন শহরে প্রস্তুতিমূলক বিক্ষোভ হয়ে আসছিল।
খোদ পশ্চিমা গণমাধ্যমগুলো খবর দিচ্ছে- অকল্যান্ড শহরে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য দাঙ্গা পুলিশ টিয়ারগ্যাস এবং প্রচণ্ড শব্দ সৃষ্টিকারী গ্রেনেড ছোঁড়ে। এ সময় বিক্ষোভকারীরাও পুলিশের ওপর লোহা ও নানা ধরনের জিনিস ছুঁড়ে মারে। শহরের পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বিক্ষোভকারীরা দু’টি ব্যাংক, পুলিশের একটি গাড়ি এবং একটি সংবাদপত্রের গাড়ি ভাঙচুর করে। পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ওপর ব্যাপক লাঠিচার্জ করেছে। সন্ধ্যার পরে আবারো সেখানে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ হয়। অকল্যান্ড শহর থেকে দিনব্যাপী এক ডজনের বেশি বিক্ষোভকারীকে আটক করা হয়েছে।
সিয়াটেল শহরে বিক্ষোভকারীরা দু’টি ব্যাংক ভবনে ভাংচুর চালায় এবং বহু ভবনের জানালা ভেঙেছে। এ সময় সেখান থেকে আট বিক্ষোভকারীকে পুলিশ আটক করে। লস অ্যাঞ্জেলেস শহর থেকে আটক করা হয়েছে ১০ জনকে এবং এক মহিলা পুলিশ আহত হয়েছে। সেখানে বিক্ষোভে অংশ নেয়া বেশিরভাগ লোকজনই ছিল বিমানবন্দরের কর্মকর্তা-কর্মচারি।
মে দিবস উপলক্ষে নিউ ইয়র্ক শহরের ইউনিয়ন চত্বরে হাজার হাজার মানুষ জড়ো হন। প্রথম দিকে অনেকটা উৎসবমুখর পরিবেশ থাকলেও দিনের শেষে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। এ সময় কালো পোষাক পরা অন্ততঃ চারশ’ বিক্ষোভকারী পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এ ছাড়া পুলিশ জানিয়েছে, চিঠির খামে করে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে হোয়াইট পাউডার পাঠানো হয়েছে। তবে এগুলো ক্ষতিকর ছিল না। মনে করা হচ্ছে- অ্যানথ্রাক্স ভীতি ছড়ানোর জন্য কোনো গোষ্ঠী এ কাজ করেছে।
এদিকে, ক্লিভল্যান্ড শহরের একটি চার লেনযুক্ত ব্রিজ উড়িয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করার অভিযোগে চারজনকে আটক করা হয়েছে। তবে সেখানে বড় ধরনের কোনো বিক্ষোভ হয়নি।
একুশ নিউজ মিডিয়া এখন ফেস বুক এ Video News: www.EkushTube.com Visit us on FaceBook
Advertisements

তথ্য কণিকা Jahan Hassan জাহান হাসান
Ekush, Publisher/Editor/ Hollywood media hyphenate/ একুশ নিউজ মিডিয়া, লিটল বাংলাদেশ, লস এঞ্জেলেস / 1 818 266 7539 / FB: JahanHassan

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: