যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় এক লাখ ২৫ হাজার লোক কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র থেকে ছিটকে পড়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ সরবরাহ বিশ্বের সর্ববৃহৎ সৌর প্লান্ট নির্মাণে

২০১১-০৮-০৭

নিউজ অর্থনীতি ডেস্ক : উন্নত বিশ্ব যুক্তরাষ্ট্র এখনও বৈশ্বিক মন্দার করাল গ্রাস থেকে মুক্তি পায়নি। এখনও চলছে সেদেশে টানাপোড়েন। হারাচ্ছে শত শত লোক কর্মসংস্থান। যুক্তরাষ্ট্রে সরকার প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে মন্দার ধাক্কায় বিধস্ত অর্থনীতিকে আগের অবস্থানে টেনে তুলতে। অর্থনৈতিক শোচনীয় অবস্থা থেকে ত্রাণ পাওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা উন্নয়নমূলক বিভিন্ন প্রকল্পে কাজ শুরু করেন। বর্তমানে যাতে আর কেউ চাকরি না হারায় এবং নতুন নতুন কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র তৈরি করতে তিনি বিশেষ কর্মসূচী গ্রহণ করেন। এরূপ একটি কর্মসূচী সৌরশক্তি প্লান্ট। এ প্লান্টে যুক্তরাষ্ট্র সরকার ২ বিলিয়ন ডলার উন্নয়নমূলক তহবিল থেকে সরবরাহ করার ঘোষণা দিয়েছে। এ প্লান্ট চালু হলে কমপক্ষে ৫ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে। ২৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুত উৎপাদিত হয়ে যা যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় গ্রিডলাইনে সংযুক্ত হবে। জাতীয় আয়ে প্রবৃদ্ধি ঘটবে। খবর বিবিসি ডট কম।

আমেরিকার এ্যারিজোনা প্রদেশে স্থাপিত বৃহৎ সৌরশক্তি প্রজেক্টে যুক্তরাষ্ট্র দুই বিলিয়ন ডলার সরবরাহ করার ঘোষণা দিয়েছে। ধারণা করা হয়, বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই সৌরশক্তি প্লান্ট। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা দু’টি কোম্পানিকে ওই পরিমাণ ঋণ সরবরাহের প্রতিশ্র”তি দিয়েছেন এবং তিনি শীঘ্রই সৌরশক্তি প্রকল্পে দ্রুত কাজ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করেন।

গত ৩ জুলাই বিবিসি অনলাইনে খবরটি প্রচার করা হলেও যুক্তরাষ্ট্র প্রেসিডেন্ট কবে ওই দুই বিলিয়ন ডলার দেয়ার ঘোষণা করেন তা রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়নি। আমেরিকার প্রেসিডেন্ট সেই দু’টি কোম্পানিকে কাজ করার জন্য অর্থ ঋণ দেয়ার ঘোষণা করেন তার মধ্যে একটি হলো এ্যাবেনগোয়া সোলার। এই এ্যাবেনগোয়া সোলার কর্তৃপক্ষ বলেছে, এ্যারিজোনায় সৌরশক্তি প্লান্টের যে পরিকল্পনা করা হয়েছে তা নির্মাণ করা হলে নিঃসন্দেহে এটা হবে বিশ্বের যেসব সৌরশক্তি প্লান্ট রয়েছে সেসব থেকে বৃহৎ।

এ্যারিজোনায় সৌরশক্তি প্রজেক্ট সম্পর্কে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেন, ওই প্রজেক্টে কমপক্ষে ৫ হাজার নতুন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। ওই প্রজেক্ট নির্মাণ সম্পন্ন হলে ৭০ হাজার বাড়িঘরে বিদ্যুত সরবরাহ করা যাবে এবং উল্লেখিত সংখ্যক বাড়িঘর থেকে কার্বন ডাই-অক্সাইড নির্গমন করা সম্ভব হবে বলে ওই রিপোর্ট উল্লেখ করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে ব্যবসা ও শিল্পোয়নে শ্লথগতি থাকা সত্ত্বেও সরকারী উন্নয়নমূলক তহবিল থেকে ওই অর্থের যোগান দেয়ার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। আমেরিকার ফোনিক্স এলাকায় অবস্থিত গিলা বেন্ডে যে প্রজেক্ট এবং যার নাম দেয়া হয়েছে ‘সোলানা’ এর সম্পর্কে এ্যাবেনগোয়া কর্তৃপক্ষ বলেছে, এই প্রজেক্ট ১৯শ’ একর এলাকার ওপর স্থাপিত। এই প্রকল্পে ব্যবহার করা হবে তাপ-প্রতিবন্ধক কক্ষ এবং উচ্চ প্রযুক্তির কৌশল। এ প্রকল্প এমনভাবে নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে যাতে এখান থেকে ২৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুত উৎপাদন করা সম্ভব হয়।

এ্যাবেনগোয়া কোম্পাানির ওয়েবসাইডে প্রকাশিত তথ্যানুসারে ওই প্রকল্প তৈরি করার সময় ১৫শ’ লোকের নতুন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে এবং ওই লোকদের পরিচালনার জন্য আরও একশ’ কর্মকর্তার প্রয়োজন হবে।

সোলার পাওয়ার প্রজেক্টে কাজ করবে অপর দ্বিতীয় কোম্পানির নাম ‘এ্যাবাউন্ড সোলার ম্যানুফাকচারিং।’ যার কাজ হলো আর্ট থিম ফিল্মে সৌর প্যানেল তৈরি। প্রথমবারের মতো এই প্রযুক্তি ব্যবসায়িক ভিত্তিতে ব্যবহার করা হচ্ছে। বিবিসি সার্ভিসের জেন ও ব্রাইয়েন ওয়াশিংটন থেকে এ রিপোর্টটি পাঠিয়েছেন। অপর এক খবরে এসোসিয়েট প্রেস (এপি) জানায়, সৌরশক্তি প্রজেক্ট তৈরির প্লান্টস কলোরাডো এবং ইন্ডিয়ানা প্রদেশে তৈরি করা হবে। এ প্রকল্পে দুই হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে এবং ১৫শ’ লোকের স্থায়ী চাকরির ব্যবস্থা রয়েছে।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা নির্বাচনী প্রচারের সময় ওয়াদা করেছিলেন, যদি তিনি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হতে পারেন তাহলে হোয়াইট হাউস গ্রিন পাওয়ার ইন্ডাস্ট্রিতে ম্যানুফাকচারিং ও নির্মাণ শিল্পে বহু কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবেন। নির্বাচনী ওয়াদার পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, আমরা শীঘ্রই প্রতিয়োগিতামূলক আগ্রাসী ভূমিকা পালন করব কর্মসংস্থান তৈরির জন্য এবং ভবিষ্যতের জন্য শিল্প প্রতিষ্ঠান এমনভাবে গড়ে তুলব যেন আমেরিকাই হয় মূল ভিত্তি।

আমেরিকায় প্রতিষ্ঠিত বহু নাবয়নযোগ্য শিল্প প্রতিষ্ঠান অন্যান্য শিল্প প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কঠিন প্রতিয়োগিতা করে টিকে রয়েছে বিশেষ করে চীনে উৎপাদিত পণ্য সামগ্রীর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে।

বারাক ওবামা স্বীকার করেন, সৌরশক্তি প্লান্টে তাৎক্ষণিকভাবে ঋণ দিলেই এ সমস্যার আশু সমাধান হবে না। এর জন্য পরিকল্পনা মাফিক আরও ভাল ভাল পন্থা বের করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের এক রিপোর্টে জানা গেছে, গত মাসেও সেদেশে প্রায় এক লাখ ২৫ হাজার লোক কর্মসংস্থানের ক্ষেত্র থেকে ছিটকে পড়েছেন।

Advertisements

তথ্য কণিকা Jahan Hassan জাহান হাসান
Ekush, Publisher/Editor/ Hollywood media hyphenate/ একুশ নিউজ মিডিয়া, লিটল বাংলাদেশ, লস এঞ্জেলেস / 1 818 266 7539 / FB: JahanHassan

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: