আবেগকে যদি ‘অনুভব করার প্রবণতা’ বলে সংজ্ঞায়িত করা যায় তবে আবেগ ও স্বভাবের মধ্যে তেমন কোন ফারাক থাকে না।

আবেগ, মেজাজ এবং স্বভাব

প্রফেসর মোহাম্মদ আবদুল হালিম

আবেগ, মেজাজ এবং স্বভাবের মধ্যকার পার্থক্যকে প্রায়ই গুলিয়ে ফেলা হয়। আবেগ, মেজাজ এবং স্বভাবকে অর্থ করতে সাধারণত: ‘আবেগ’ বা ‘অনুভূতি’ শব্দটিই ব্যবহার করা হয়। কিন্তু, মনস্তাত্তি্বক দিক থেকে এদের মধ্যে খুব সূক্ষ্ম পার্থক্য লক্ষ্য করা যায়। আবেগ হল অনুভূতির এক বিশেষ রূপ বা ধরন। আবেগকে অনুভূতির এক জটিল রূপ বলে আখ্যায়িত করা যায়। আবেগ-বিশেস্নষণে দেখা যায় এর উদ্ভব ঘটে কোনভাব বা ধারণার দ্বারা। বস্তু প্রত্যক্ষণ করার পর বস্তুটির একটা ভাব বা ধারণা মনে জাগরিত হয় এবং সেই ধারণাটিই আবেগের সঞ্চার করে। আবেগে অনুভূতির এক বিশেষ রূপ প্রকাশ পায় আবেগে: যেমন, ভয়-ভীতি, ক্রোধ-হিংসা ইত্যাদি। ভয় হিংসা ক্রোধের প্রভাবে মনে আবেগের সৃষ্টি হয় এবং এর বহিঃপ্রকাশ ঘটে। কিন্তু, অবস্থায় যদি এমন হয় যে মনে ক্রোধ বা হিংসার ভাব বিরাজ করছে অথচ আসলেই ক্রুদ্ধ বা হিংসা পরায়ণ হইনি তবে এই অবস্থাকে মেজাজ বা বলা হয়। মেজাজ হল আবেগের বাস্তবে পরিণত হওয়ার বা প্রকাশ পাওয়ার পূর্ব-মুহূর্ত বা প্রবণতা আবেগের সাথে মেজাজের পার্থক্য নিম্নরূপ: ক) তুলনামূলকভাবে মেজাজ আবেগের চেয়ে দীর্ঘস্থায়ী খ) মেজাজের ক্ষেত্রে কোন সুনির্দিষ্ট বস্তু থাকে না তবে এর বৈশিষ্ট্যে যে নিজ থেকে এ একটা বস্তু সৃষ্টি করে নিতে পারে এবং তা আবেগে রূপান্তরিত করতে পারে। যেমন: রাগ-ক্রোধ-হিংসার মেজাজ হলে কিংবা আনন্দ বা খুশীর মেজাজ হলে পর সে যে কোন সামান্য বিষয়কে কেন্দ্র করে রাগের বিস্ফোরণ ঘটাতে পারে বা আনন্দের বন্যায় ছড়াতে পারে। গ) আবেগ বাস্তব অনুভূতির পক্ষান্তরে মেজাজ হল বাস্তব আবেগ প্রকাশ পাওয়ার পূর্বাবস্থা, পূর্ব-মুহূর্ত বা প্রবণতা। একই মেজাজ নানান ধরনের আবেগ সৃষ্টি করতে পারে। যেমন, সুখ-দুঃখ-বেদনা-ক্রোধ-হিংসা ইত্যাদি। আবেগ এর আনুষঙ্গিক মেজাজের উপর প্রতিক্রিয়া ঘটায়। যদি কারোর রাগের মেজাজ দেখা দেয় তবে তার মধ্যে রাগের মেজাজ তৈরি হয়ে যায় এবং পরে তা অভ্যাসে পরিণত হয়। তবে সাধারণত: মেজাজ এত দীর্ঘস্থায়ী হয় না। আমরা কখনও খোশ-মেজাজে কখনও দুঃখ মেজাজে কোন কোন সময় আনন্দ-স্ফূর্তির মেজাজে, আবার কখনও বা পরিশ্রান্ত বা অবসন্ন মেজাজে থাকি।

শারীরিক বা দৈহিক অবস্থা সাধারণত: মেজাজ সৃষ্টি করে। যারা হজমজনিত সমস্যা ভোগেন তারা সাধারণত: রুক্ষ ও খিটখিটে মেজাজে হয়ে থাকেন। যারা নিদ্রাহীনতা ভোগেন তাদের মধ্যে খুব অস্থিরতা ও অস্বস্থি ও উসখুশ মেজাজ লক্ষ্য করা যায়। যারা স্নায়বিক রোগে আক্রান্ত তাদের মধ্যে একটা হতাশা ও বিষন্নতার ভাব পরিলক্ষিত হয়।

স্বভাব: অনুভূতির বাস্তব প্রকাশ হল আবেগ-স্বভাব কিন্তু অনুভূতির বাস্তব প্রকাশ নয়। এ হল কোন বস্তু সম্পর্কে কোন বিশেষ অবস্থায় কোন অনুভব করার স্থায়ী মানসিক প্রবণতা। স্বভাব মেজাজের তুলনায় অধিকতর স্থায়ী প্রবণতা।

স্বভাব সহজাত বা অর্জিত হতে পারে। নারীগণ তাদের মাতৃসুলভ সহজাত স্বভাব-প্রবণতা নিয়ে জন্মগ্রহণ করেন। ছোট ছোট শিশুদের আদর করা, স্নেহ করা এবং ভালবাসা তাদের সহজাত প্রবণতা। উচ্চ শব্দ শুনে ভীত হয়ে পড়া শিশুদের সহজাত স্বভাব। স্বভাব অর্জিত হতে পারে। যখন কাউকে ভালবাসা বা ঘৃণা করা হয় তখন সেই ভালবাসা বা ঘৃণা করার যে প্রবণতা তা হল স্বভাব। আবেগ এবং মেজাজের ক্ষেত্রে সেই সম্পর্কে সচেতনতা থাকে- কিন্তু স্বভাবের বেলায় সব সময় সচেতন থাকা হয় না। বাবা কন্যার প্রতি দরদী-স্নেহশীল। কিন্তু এই স্নেহশীলতা সম্পর্কে বাবা সব সময় সচেতন থাকেন না। বিশেষ বিশেষ ঘটনা বা অবস্থার প্রেক্ষিতে যখন বাবার এই স্বভাবের বহিঃপ্রকাশের প্রয়োজন দেখা দেয় তখনই তার স্বভাবের আত্মপ্রকাশ ঘটে। স্নেহশীল স্বভাবের জন্যেই পিতা কন্যার সাফল্যে পুলকিত হন- ব্যর্থতায় দুঃখ-বেদনায় ব্যথিত হন।

আবেগের সাথে স্বভাবের মূল পার্থক্য হল: স্বভাব আবেগের তুলনায় অধিকতর স্থায়ী। এতদ্ব্যতীত আবেগ হল কোন অবস্থা-অনুভূতির বাস্তব প্রকাশ। স্বভাব চেতনার নিম্নস্তরে অবস্থান করে। যাকে ভালবাসা বা ঘৃণা করা হয় সেই সম্পর্কে সদা সচেতন থাকা হয় না। মনোবিজ্ঞানীগণ এ ধরনের পার্থক্যকে গুরুত্ব দেন না। তাদের মতে বিষন্নতা ‘ভালবাসা’ ঘৃণা ইত্যাদি আবেগ ও স্বভাব উভয় অর্থেই ব্যবহার করা হয়। আবেগকে যদি ‘অনুভব করার প্রবণতা’ বলে সংজ্ঞায়িত করা যায় তবে আবেগ ও স্বভাবের মধ্যে তেমন কোন ফারাক থাকে না।

[লেখক : সাবেক অধ্যক্ষ এম.সি. কলেজ, সিলেট]

Advertisements

তথ্য কণিকা Jahan Hassan জাহান হাসান
Ekush, Publisher/Editor/ Hollywood media hyphenate/ একুশ নিউজ মিডিয়া, লিটল বাংলাদেশ, লস এঞ্জেলেস / 1 818 266 7539 / FB: JahanHassan

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: