হৃদরোগীরা সতর্ক থাকুন : কোরবানির ঈদ মানেই সেক্রিফাইস

ঈদ উৎসবে হৃদরোগীদের করণীয়

কোরবানির ঈদ

কোরবানির ঈদ


ডা· আবদুল ওয়াদুদ চৌধুরী
সহযোগী অধ্যাপক, হৃদরোগ বিভাগ
ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল

আমাদের জীবনে আবারও আসছে ঈদুল আজহা। এ ধরনের উৎসব বা পার্টি মানেই হচ্ছে- ‘ইটিং অ্যান্ড ড্রিঙ্কিং’ এবং কিছু বেশি মাত্রায়। যদিও ধর্মে আছে- মাত্রা রেখে চল। তবে উৎসব-অনুষ্ঠান আর পার্টিতে এ মাত্রার মাত্রাতিরিক্ত বাড়াবাড়ি হয়ে যায় অনেক সময়। তাই জিহ্বার লোভ সংবরণ করে চলতে হয়। মনে রাখা উচিত যে কোনও স্বাস্থ্যকর খাবারের মূল নিয়ম হচ্ছে পরিমিতবোধ। এ বোধটা আসছে ঈদেও জাগ্রত রাখতে হবে।

হৃদরোগীরা সতর্ক থাকুন
যাদের হার্ট অ্যাটাক হয়েছে, হৃৎপিণ্ডের রক্তনালীতে রিং বসানো হয়েছে, রক্তে ক্ষতিকারক কলেস্টেরলের মাত্রা বেশি, হাঁটলে বা জগিং করলে যাদের বুক ব্যথা হয়- তাদের অবশ্যই তেল-চর্বিসমৃদ্ধ খাবার বর্জনীয়। তবে ঈদ উৎসবে যদি খেতেই হয় তবে ঝোল ছাড়া ডাল দিয়ে দু’এক টুকরা মাংস খাওয়া যায়। এ রোগী কাবাব খেতে পারেন, কারণ কাবাব তুলনামূলক কম চর্বিযুক্ত মাংস দিয়ে করা হয়, তবে এ খাবারে লবণ বেশি থাকে তাই উচ্চরক্তচাপের রোগীরা কাবাব খাবেন না।

মাংসের ঝোল বর্জনীয়
অনেকে মাংস বাদ দিয়ে ঝোল দিয়ে খান এ ভেবে যে চর্বি ছাড়া খাবার খাওয়া গেল! আসলে ঝোলেই সব চর্বি এসে জমা হয়। তাই উচ্চরক্তচাপ ও হৃদরোগী মাংসের ঝোল খাওয়ার ব্যাপারে সাবধান থাকবেন।

ঈদে রেডমিট খেলে কিছু হয় না!
কোরবানির ঈদ মানেই সেক্রিফাইস। তাই অনেকে মনে করেন, ত্যাগের এ ঈদে একটু বেশি রেডমিট খেলে শরীরে তেমন অসুবিধা হয় না।
আসলে লাল মাংসে কলেস্টেরলের পরিমাণ সব সময়ই একই থাকে- সেটা ঈদে বা অন্য যে কোনও সময়েই হোক না কেন। পোলাও রান্না করাতেও পরিবর্তন এসেছে। এখন কম তেল দিয়ে বা ঘিয়ের বদলে সয়াবিন দিয়ে কীভাবে পোলাও রান্না করতে হয় তা অনেকেরই জানা আছে।

ঈদে চাই স্বাস্থ্য সচেতনতা

সাবের সাহেবের মন বেজায় খুশি। কোরবানির ঈদে সব পরিচিতজনকে একসঙ্গে পেয়েছেন। বিভিন্ন বাসায় বেড়াচ্ছেন আর সবার অনুরোধে খেয়েই যাচ্ছেন। কিন্তু একসময় খেয়াল করলেন, পেটে প্রচণ্ড অস্বস্তি হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত ডাক্তারই আনতে হলো। ফলে সাবের সাহেবের ঈদের আনন্দটাই গেল মাটি হয়ে। আসলে একটু সাবধান না হলে সবারই সাবের সাহেবের মতো অবস্থা হতে পারে। তাই উৎসবের রঙে ঈদের দিনটিকে রাঙাতে স্বাস্থ্যসচেতন হওয়া জরুরি।

কোরবানির ঈদে স্বাস্থ্যসচেতনতার প্রথম ধাপ শুরু করুন পরিবেশটাকে পরিচ্ছন্ন রাখার অঙ্গীকার দিয়ে। তাই পশু কোরবানির পর নাড়িভুঁড়ি অবশ্যই ডাস্টবিনে ফেলুন। রক্ত বা অন্যান্য বর্জ্য ভালোভাবে ধুয়ে বিল্গচিং পাউডার ছিটিয়ে দিন।
কোথাও কোনো নাড়িভুঁড়ি পড়ে থাকতে দেখলে দ্রুত সিটি করপোরেশনে খবর দিন। এসব পদক্ষেপে শুধু পরিবেশটাই সুন্দর হবে না, আপনিও বাঁচবেন নানা রোগ-জীবাণু থেকে। কোরবানির ঈদে যাদের কোলেস্টেরল বেশি, তারা অবশ্যই পরিমিত মাংস খাবেন এবং তেল-চর্বি ও হোটেলের পরোটা এড়িয়ে চলবেন। প্রচুর পানি খাবেন। মাংস যথাসম্ভব কম খাবেন অনেক বাসায় মিষ্টি, পায়েস, সেমাই ইত্যাদির আয়োজন থাকে। সম্ভব হলে অন্যান্য খাবার খেয়ে পরিস্থিতি সামাল দিন। সবচেয়ে ভালো হয় সারাদিন খাওয়া শেষে বাসায় ফিরে রাতে খুব কম করে খেলে বা একদম না খেলে।

ইনসুলিন নির্ভরশীল ডায়াবেটিসে আক্রান্তদের কোরবানির ঈদে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। যাদের বাসায় গল্গুকোমিটার আছে তারা কোরবানির দিনে কয়েকবার রক্তের গল্গুকোজ চেক করে নিন। গরুর মাংসে অ্যালার্জি খুব সাধারণ ঘটনা। অ্যালার্জি হলে শরীরে চুলকানি, চামড়া লাল হয়ে যাওয়া, হাঁচি, নাক দিয়ে পানি পড়া, কাশি ইত্যাদি হতে পারে। অনেকের ছাগলের মাংস খেলেও এমনটি হয়। তাই এদের একটু সাবধান হতে হবে। অবশ্য আজকাল বাংলাদেশে ফুড অ্যালার্জির ভালো চিকিৎসা হচ্ছে। এজন্য ভালো প্রতিষেধকও রয়েছে। তাই আগে থেকেই একজন অ্যালার্জি বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হলে এ অসুবিধা আর থাকবে না।

কোরবানিতে সবারই কমবেশি এসিডিটি হয়। তাই ভাজাপোড়া যথাসম্ভব কম খাবেন এবং কখনও পেটভর্তি করে খাবেন না। এসিডিটি দমনে এটি বেশ কাজে দেবে।যাদের খুব বেশি এসিডিটি হয় তারা বিভিন্ন গ্যাস্ট্রিক প্রতিরোধক ওষুধ যেমন : এইচ টু বল্গকার, প্রোটন পাম্প ইনহিবিটর,এন্টাসিড ইত্যাদি খেতে পারেন। ঈদের সময় অনেককেই ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হতে দেখা যায়। এজন্য মেট্রোনিডাজল ট্যাবলেট ও পর্যাপ্ত স্যালাইন ঘরে রাখুন। শিশু, গর্ভবতী মহিলা বা সংকটাপন্ন রোগীদের ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

কোরবানি নির্মল আনন্দের এক ঈদ। তাই সবসময় খেয়াল রাখবেন আপনার অতিরিক্ত পরিচ্ছন্নতা যেন শুচিবাইয়ের পর্যায়ে না পেঁৗছে। অন্যের বিরক্তির কারণ হতে পারে না। প্রকৃতপক্ষে একটু সাবধানতা আর নিয়ম মেনে চললে আপনার ঈদের সময়টুকু হবে উচ্ছ্বাস আর আনন্দময়।

ডা. নাফিসা আবেদীন
রেজিস্ট্রার, বারডেম

Advertisements

তথ্য কণিকা Jahan Hassan জাহান হাসান
Ekush, Publisher/Editor/ Hollywood media hyphenate/ একুশ নিউজ মিডিয়া, লিটল বাংলাদেশ, লস এঞ্জেলেস / 1 818 266 7539 / FB: JahanHassan

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s