গ্রামীণফোনের লকইন আর মাত্র ৩ দিন

গ্রামীণফোনের লকইন আর মাত্র ৩ দিন

শেয়ার বিজ্‌ রিপোর্ট
গ্রামীণফোনের পেস্নসমেন্ট শেয়ারে লকইন রয়েছে আর মাত্র ৩ দিন। আগামী ২৭ অক্টোবর এ কোম্পানির পেস্নসমেন্ট শেয়ারের লকইনের সময় শেষ হচ্ছে। এদিকে লকইনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে বেরিয়ে যাওয়ার প্রবণতাও বেড়েছে। বাজার সংশিস্নষ্টদের মতে, পেস্নসমেন্টের শেয়ার বাজারে ঢুকলে এ কোম্পানির শেয়ার সরবরাহ বেড়ে যাওয়ায় দর কমার আশঙ্কা থেকে বিনিয়োগকারীরা বেরিয়ে যাচ্ছেন। দেশের শেয়ারবাজারে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক শেয়ার নিয়ে আসে গ্রামীণফোন কোম্পানি। এটি শেয়ারবাজার সম্প্রসারণে উলেস্নখযোগ্য ভূমিকা রাখে। কারণ এ কোম্পানি শেয়ারবাজারের বিজ্ঞাপন হিসেবে কাজ করে। সবচেয়ে বেশি সংখ্যক বিনিয়োগকারীর অন্তôর্ভুক্তি ঘটে এ কোম্পানির আইপিওর মাধ্যমে। সবচেয়ে বড় মূলধনী কোম্পানি গ্রামীণফোন গত বছর প্রাথমিক গণপ্রস্তôাবের (আইপিও) মাধ্যমে শেয়ার ছেড়ে স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত হয়। আইপিওতে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের ৬ কোটি ৯৪ লাখ শেয়ার বিক্রি করা হয়েছে। প্রতি শেয়ারের প্রস্তôাবিত মূল্য ছিল ৭০ টাকা। এর আগে প্রতিষ্ঠানটি পেস্নসমেন্টের মাধ্যমে বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে ৭৪ টাকা দরে ৬ কোটি ৫৬ লাখ শেয়ার বিক্রি করে। বিধি অনুযায়ী পেস্নসমেন্ট শেয়ারের ওপর ১ বছরের লকইন তথা শেয়ার বিক্রি ও হস্তôান্তôরে নিষেধাজ্ঞা থাকে। সে অনুযায়ী আগামী ২৭ অক্টোবর এ কোম্পানির শেয়ারে লকইনের সময়সীমা শেষ হচ্ছে। তবে কবে থেকে এ মেয়াদ গণনা শুরম্ন হবে তা নিয়ে কিছু বিভ্রান্তিô তৈরি হয়েছিল। এরই প্রেড়্গিতে গ্রামীণফোন কর্তৃপড়্গ এসইসির কাছে বিষয়টি স্পষ্ট করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছিল। এসইসি এক চিঠিতে ২৭ অক্টোবর পর্যন্তô পেস্নসমেন্ট শেয়ারে লকইন থাকবে বলে নিশ্চিত করে।

উলেস্নখ্য, গত বছরের ২ জুলাই এসইসি কিছু শর্তসাপেক্ষে নীতিগতভাবে গ্রামীণফোনের আইপিওর অনুমোদন দেয়। একই বছরের ২০ আগস্ট দেয়া হয় ছাড়ার অনুমোদন। ৪ থেকে ৮ অক্টোবর পর্যন্তô আইপিওর আবেদনপত্র জমা নেয়া হয়। তার ৬ মাস আগে থেকে পেস্নসমেন্ট শেয়ার বিক্রি শুরম্ন হয়। আইপিও এবং প্রি-আইপিও পেস্নসমেন্টের শেয়ার সংশিস্নষ্টদের হিসাবে একই সঙ্গে জমা করা হয়, যা শেষ হয় গত বছরের ২৮ অক্টোবর। আর নভেম্বরের ১৬ তারিখে দেশের ২ বাজারে একযোগে এর শেয়ার লেনদেন শুরম্ন হয়।এদিকে শেয়ার সরবরাহ বেশি থাকায় দীর্ঘদিন ধরে স্পট মার্কেটে রয়েছে কোম্পানিটি। কারণ এর শেয়ার দর ওঠানামায় ডিএসইর সূচকের ওপর ব্যাপক প্রভাব ফেলে। তবে লকইনের সময় শেষ হওয়ায় বিনিয়োগকারীরা এ শেয়ার থেকে বের হয়ে আসার প্রবণতা লড়্গ্য করা যাচ্ছে। কারণ পেস্নসমেন্টের শেয়ার বাজারে ঢুকলে এর দর পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বাজার বিশেস্নষণে দেখা যায়, গত ১৩ অক্টোবর এ কোম্পানির শেয়ার দর ছিল ২৬৩ টাকার মধ্যে। ওই দিন থেকে ধারাবাহিকভাবে দর পড়ছে। টানা ৭ কার্যদিবস দর পড়ে গত ২১ অক্টোবর ২৪৬ টাকায় নেমে আসে। গতকাল এর শেয়ার দর ২ টাকা ৮০ পয়সা বেড়ে সর্বশেষ লেনদেন হয় ২৪৯ টাকা ৫০ পয়সায়।

Advertisements

তথ্য কণিকা Jahan Hassan জাহান হাসান
Ekush, Publisher/Editor/ Hollywood media hyphenate/ একুশ নিউজ মিডিয়া, লিটল বাংলাদেশ, লস এঞ্জেলেস / 1 818 266 7539 / FB: JahanHassan

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: