সুদের হার বাড়িয়েছে চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক বেজিংয়ের এ অপ্রত্যাশিত সিদ্ধান্ত বিশ্ব শেয়ারবাজারে ধস – আইএইচটি

সুদের হার বাড়িয়েছে চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক
বেজিংয়ের এ অপ্রত্যাশিত সিদ্ধান্ত বিশ্ব শেয়ারবাজারে ধস
বিজনেস ডেস্ক ঃ  চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক তিন বছরের ইতিহাসে এই প্রথম হঠাৎ করেই মঙ্গলবার বিকেলে সুদের হার বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে। দ্রুত মুদ্রাস্ফীতি কমানো এবং রিয়েল এস্টেট ব্যবসার লাগাম টেনে ধরাতেই দেশটি অপ্রত্যাশিত এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
দ্য পিপলস্‌ ব্যাংক অব চায়না কর্তৃপড়্গ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যে, ইতোমধ্যে তারা ঋণের ?েত্রে সুদের হার শূন্য দশমিক ২৫ শতাংশ বাড়িয়েছে। ডিপোজিটের ?েত্রে এই হার বাড়ানো হয়েছে ২ দশমিক ২৫ শতাংশ। চীন দীর্ঘদিন ধরে কঠিন মুদ্রাস্ফীতি ও গৃহ নির্মাণসামগ্রীর মূল্যবৃদ্ধি সমস্যা মোকাবেলা করে আসছে।
দেশটির এ প্রচেষ্টাকে স্বাগত জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। বুধবার আইএমএফের সহকারী ব্যবস্খাপনা পরিচালক জন লিপস্ড়্গি এক বিবৃতিতে বলেছেন, এর মাধ্যমে চীন তার অর্থনীতিতে ভারসাম্য নিয়ে আসতে পারবে। চীনের প্রতি ইউয়ানের মূল্যমান বাড়াতে বিশ্বব্যাংকের আহ্‌বানের পরই দেশটি এই সিদ্ধানত্ম নিয়েছে। অন্যদিকে এ সপ্তাহে দ?িণ কোরিয়ায় অনুষ্ঠিত হয় ’জি টোয়েন্টি’ সদস্য দেশগুলোর অর্থমন্ত্রীদের সম্মেলন। ওই সম্মেলনে তারা বিশ্ব মুদ্রা যুদ্ধের আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন।
চীনে সুদের হার বাড়ানোর সিদ্ধানত্মে প্রবৃদ্ধি কমে যেতে পারে এই আশঙ্কায় বুধবার বিশ্বের বেশিরভাগ শেয়ারবাজারে ব্যাপক ধস নামে। অনেক অর্থনীতিবীদ মনে করেন, মুদ্রাস্ফীতি মোকাবেলা এবং কম মূল্যে আমদানির জন্য চীনের মুদ্রার মূল্যমান বাড়ানো উচিত। কিন্তু দেশটির সরকার এ প্রস্তাবে পুরোপুরি ভিন্নমত পোষণ করছে। তারা এ ?েত্রে তাদের রফতানিকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছে। তবে চীনের এ সিদ্ধানত্মে অনেক বিশেস্নষকরাই বিস্মিত হয়েছেন। মাত্র দুদিন আগেও দেশটির এক ব্যাংক কর্মকর্তা সুদের হার বাড়ানোর প্রয়োজন নেই বলে মনত্মব্য করেছিলেন। ২০০৭ সালের ডিসেম্বরের পর এই প্রথম দেশটি এ ধরনের কোন সিদ্ধানত্ম নিয়েছে।
দং তাও হংকংয়ের একজন অর্থনীতিবীদ। চীনা সরকারের এই সিদ্ধানত্মের পর তিনি এক ই-মেইল বার্তায় জানান, এটা প্রকৃত অর্থনীতিতে খুব বেশি প্রভাব ফেলতে পারবে না। কারণ সামগ্রিকভাবে এই হার খুব বেশি নয়। আর এ সিদ্ধানত্ম সম্্‌ভবত রিয়েল এস্টেট বাজার ও ইক্যুইটি মার্কেটের লাগাম কিছুটা হলেও টেনে ধরতে স?ম হবে। তবে এটা খুবই স্বল্প সময়ের জন্য। এবং আমরা বিশ্বাস করি যে, অর্থনৈতিক তারল্য আগের মতোই বজায় থাকবে। যেখানে বিশ্বের অনেক দেশ প্রবিদ্ধ বাড়াতে হিমশিম খাচ্ছে। চীন সেখানে বিশ্ব প্রবৃদ্ধির অন্যতম প্রধান চালিকাশক্তি হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। কারণ সারা দুনিয়া যখন অর্থমন্দায় আচ্ছন্ন। চীনে তখনও রেকর্ড অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। চীন বিশ্ব রফতানি বাজারের অন্যতম প্রধান দেশ হওয়াতে ইউয়ানের মূল্যমান বাড়াতে বরাবরই নেতিবাচক মনোভাব ব্যক্ত করেছে। আর যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দুনিয়া চীনের এ সিদ্ধানত্মের কঠোর সমালোচনা করে আসছে।
একটি জোরালো অর্থনৈতিক প্রণোদনা প্যাকেজ এবং রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকসমূহ থেকে বিপুল পরিমাণ ধার গ্রহণ চীনকে ২০০৮ সালের বিশ্বমন্দা পরিস্খিতি কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করেছে। কিন্তু অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিও উচ্চহার এবং ব্যাপক অবকাঠামো ও নির্মাণ কর্মসূচী দেশটির অর্থনীতিতে অনেক বেশি অস্খিরতা সৃষ্টি করছে বলে ধারণা করা হয়। তাই এ বছরের শুরম্ন থেকেই চীনা সরকার প্রবৃদ্ধিও লাগাম টেনে ধরার চেষ্টা করে এবং মুদ্রাস্ফীতিকে সহনীয় অবস্খায় নিয়ে আসার উদ্যোগ নেয়। কেননা উচ্চ প্রবৃদ্ধির কারণে দেশটিতে যে মুদ্রাস্ফীতি দেখা দিয়েছে তাতে খাদ্যমূল্য অনেক বেড়ে গেছে। এর ফলে দেশটিতে সামাজিক সমস্যা দেখা দেয়। শুধু তাই নয় বিনিয়োগকারীরা চীনে মুদ্রার মূল্যমান বৃদ্ধির আভাস দেয়ার পরিপ্রে?িতে বেজিং চীনে নগদ অর্থ প্রবেশের ধারা শস্নথ করারও চেষ্টা করছে। রফতানি থেকে বিপুল আয় এবং বিদেশী বিনিয়োগজনিত কারণে চীনে বৈদেশিক মুদ্রার ঢল নামছে। ফলে দেশটির অর্থনীতিতে নগদ অর্থের ব্যাপক চাপ বাড়ছে। এমনকি ফেডারেল রিজার্ভ কর্তৃপ? যুক্তরাষ্ট্রে অতিরিক্ত অর্থ ছাড়ার যে আভাস দিয়েছে তা থেকেও চীনা অর্থনীতিতে নতুন করে অর্থের চাপ সৃষ্টি হতে পারে। কেননা মার্কিন অর্থ প্রবাহের একটি অংশ চীনে ঢুকে সেদেশের মুদ্রাস্ফীতিকে আরও প্রকট করে তুলতে পারে এবং বাড়িয়ে তুলতে পারে সম্পত্তির মূল্য। তথসূত্রঃ আইএইচটি

Advertisements

তথ্য কণিকা Jahan Hassan জাহান হাসান
Ekush, Publisher/Editor/ Hollywood media hyphenate/ একুশ নিউজ মিডিয়া, লিটল বাংলাদেশ, লস এঞ্জেলেস / 1 818 266 7539 / FB: JahanHassan

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: